গানের জগতে নতুন তারা পোর্শিয়া

ছোট থেকেই মিউজিকের প্রতি তার অদ্ভুদ একটা টান ছিল।ছোটতেই সেই টানটা বাবা বুঝতে পারেন এবং ছোট থেকেই বাবা গানের রেওয়াজ করাতে থাকেন।এইভাবেই গানকে ভালোবেসে ফেলা।বাবা ছোট থেকে বিভিন্ন গানের প্রতিযোগিতায় নিয়ে যেতেন আগে থেকে না বলে,যাতে যেকোনো জায়গায় যেকোনো মুহূর্তে তিনি গান করতে পারেন।বাবা দেখতে চাইতেন মেয়ে কতটা ঠিকঠাক রেওয়াজ করছে,কঠিন প্রতিযোগিতার সম্মুখীন হতে কতটা প্রস্তুত।

খুব ছোট বয়স থেকেই ‘ওরাকেলস’ নামে একটি ব্যান্ড তৈরি করে ফেলেন।যখন সবে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী ব্যান্ডের জন্য কম্পোজ করে ফেলেন একটি গান।পাশপাশি বাবার সাথে বিভিন্ন গানের রিয়ালিটি শোয়ের অডিশন দেওয়া।এভাবে সুযোগ চলে আসে ২০১৪ সালে জি বাংলা সারেগামাপা’তে সুযোগ পান।সেখানে তিনি টপ সেভেনে পৌঁছান।তারপর তার আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।তিনি মিষ্টি স্বভাবের মিষ্টি গায়কা পোর্শিয়া সেন।

শিলিগুড়ি থেকে কলকাতা আসার জার্নি প্রসঙ্গে পোর্শিয়া জানালেন,”আমার জন্ম,বড় হয়ে ওঠা,স্কুলিং,কলেজ সবই শিলিগুড়িতে।খুব ছোট থেকেই গানের তালিম।ক্লাস টুয়েলভে পড়ার সময়ই আমার শিলিগুড়ির ব্যান্ড ‘ওরাকেলস’-এর জন্য গান লিখেছিলাম,কম্পোজ করেছিলাম,রেকর্ডও করা হয়ে গেছিলো, কিন্তু রিলিজটা টা হয়নি।সেই সময় আমার রক গানের প্রতি একটু বেশি টান ছিলো, গানের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানাতে চাইতাম।তাই ব্যান্ডটা তৈরি করেছিলাম।ব্যান্ডের বাকি সবাই সদস্য আমার থেকে অনেক বড় ছিলেন।এরপর সারেগামা তে সুযোগ পাওয়ার পর শিলিগুড়ি থেকে কলকাতায় চলে এলাম তারপর থেকে তো কলকাতাতেই গান বাজনা চলছে।শিলিগুড়ির ওই ‘ওরাকেলস’ ব্যান্ডের অন্যতম সদস্য পুপুন দা আজও আমার টিমে আছেন।”

সারেগামার পর বিভিন্ন জায়গায় শো করতে শুরু করেন।ইতিমধ্যে পোর্শিয়া কানাডা,বাংলাদেশ,ইউএসএ সহ একাধিক দেশে শো করে ফেলেছেন।

২০১১ সালে ‘লেট আস ফ্রম শিলিগুড়ি’ নামে একটি ইন্দো বাংলাদেশ অ্যালবামে সিধু,ইমন,বাংলাদেশের বাপ্পা মজুমদারদের কাজ করার সময় পোর্শিয়া গানের খুঁটিনাটি অনেক কিছু শেখেন এবং বিভিন্ন ধরণের গান শোনার প্রবণতা তৈরি হয়।

অর্ঘদীপ চট্টোপাধ্যায়ের পরিচালনায় নীলাঞ্জন ঘোষের সঙ্গীত পরিচালনায় ‘মুখোশ’ ছবিতে প্রথম প্লেব্যাক করেন।সম্প্রতি বাপ্পার পরিচালনায় সৌম্য ঋতের সুরে ‘শহরের উপকথা’ ছবিতে পোর্শিয়ার কণ্ঠে টাইটেল ট্রাকটি বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

মুক্তির অপেক্ষায় আছে তথাগত মুখোপাধ্যায়ের পরিচালনায় ময়ূখ ভৌমিকের সুরে ‘ভটভটি’।নীল দত্তর সুরে ‘মার্ডার ইন দ্য হিলস’ ওয়েব সিরিজেও গাইলেন।আরো বেশ কয়েকটি ছবির কাজ চলছে।
পাশপাশি বেশ কয়েকটি জিঙ্গেলসে ও মেগা ধারাবাহিকেও গেয়েছেন।

ইন্দ্রদীপ দাশগুপ্ত ও জয় সরকারের সঙ্গীত পরিচালনায় কাজ করতে চান পোর্শিয়া।

বাবা মায়ের একমাত্র কন্যা পোর্শিয়া চান গানে গানে শ্রোতাদের হৃদয়ে জায়গা করে নিতে।এব্যাপারে পোর্শিয়ার বিশেষ বন্ধু গিটারিস্ট বাচস্পতি চক্রবর্তী তার সবসময় পাশে থেকেছেন।সময় পেলেই গান নিয়ে আড্ডা চলে দুজনের।

সুন্দরী গায়িকা পোর্শিয়ার অভিনয়ের প্রস্তাবও এসেছে বহুবার।তবে এখন তিনি গানেই দর্শকহৃদয় জয় করতে চান।

সাক্ষাৎকার:রামিজ আলি আহমেদ
ছবি:বাবান মুখার্জী
মেকআপ এবং হেয়ার:বাবান ইসলাম
ড্রেস:কিয়ারা সেন