বিশ্ব নারী দিবস ও কিছু কথা

 

✍️সঞ্জয় চট্টোপাধ্যায়(সংগীতশিল্পী)

বিভিন্ন মাধ্যমে জ্ঞাত হলাম আজ নারী দিবস।
আর সার্বিক ভাবে এই নির্দিষ্ট দিনে এই নারী দিবস নিয়ে কতকিছু। একটু অবাকই হচ্ছি এসব দেখে।
কারণটা আশাকরি আমার এই লেখাতে ব্যক্ত করতে পারব।

ছোটবেলা থেকে কিছু বছর আগে অবধিও যেকোন বিষয়ে কোন নির্দিষ্ট দিন ধার্য করে তাঁকে পালন করার এই উদ্দীপনা তেমন করে চোখে পড়েনি যেমন, ঠিক তেমনই পাশাপাশি সমাজের সমস্ত বিষয়ের উপর প্রতিটা মানুষের সংবেদনশীলতা, মানবিকতা, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসাকে দেখেছি ভীষণ ভাবে আর তাঁরই সঙ্গে সঙ্গে সেটাই শিখেছি নিজেও।

এখন বর্তমান সময়ে এই যে প্রতিটা বিষয়ের উপর ভিত্তি করে একটি নির্দিষ্ট দিনকে সেই বিষয়ের দিবস হিসেবে তকমা দেওয়াটা জানি না কোন আধুনিকতার ফল প্রকাশ!!

আমার সহজ ও সাধারণ ভাবনা চিন্তায় শুধু এইটুকু বলতে পারি যে, সবকিছুতেই এত দিবস তৈরি করে আলাদা করে তাঁকে জাঁকজমকপূর্ণ করে তোলার পিছনে হয়ত কোন ব্যবসায়িক স্বার্থ কাজ করে চলেছে। আদপে এই বিযয় গুলির প্রতি প্রকৃত শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা কোনটাতেই আন্তরিকতার লেশ মাত্র অন্তত আমার চোখে পড়ে নি বা পড়ে না। আর এটা আমার কাছে সত্যিই হাস্যকর যে দিবস বলতে আমরা কি তবে শুধু এই নির্দিষ্ট দিনটিতেই সেই বিযয়টার মান্যতা দেব বলে ধরে নিতে পারি? বছরের আর বাকি দিনগুলো নয়?

আমার ব্যক্তিগত ও নীতিগত ভাবে এই নিয়মকে মেনে নিতে আপত্তি আছে।

আমার শিক্ষা ও ভাবনা চিন্তায় বলতে পারি, আমাদের সমাজের এই রকম প্রতিটা বিযয়ের কোন নির্দিষ্ট দিন বা দিবস হতে পারে না। আজ যেহেতু নারী দিবস বিষয়, তাই তাঁরই পরিপ্রেক্ষিতে বলতে পারি মানুষের সভ্যতার জাগরণের সঙ্গে সঙ্গে আমরা নারী বা নারী জাতিকে শ্রদ্ধা ও সন্মান দিতেই শিখেছি আমাদের শিক্ষার মধ্যে দিয়ে বা আমাদের শেখানোও হয়েছে তাই, আর তা শুধুমাত্র লোক দেখানো নয়। সম্পূর্ণ ভাবেই তা আন্তরিকতা, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা দিয়েই।

আজ এই নির্দিষ্ট দিবস উদযাপন করছে সমাজের বেশ কিছু মানুষ। তাঁদের শুধু এইদিনেতেই ভক্তি, শ্রদ্ধা বা আনন্দ আর ধরে না।

সোস্যাল মিডিয়া ভরে যাচ্ছে শুভকামনা ও প্রীতি শুভেচ্ছার বন্যায়। বলতে পারেন? সত্যিই কি এই নির্দিষ্ট একটি দিন আমাদের নারী ও নারী সমাজের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধাশীল করে তোলে? যদি তাই হয়, তাহলে আজও কেন আমাদের শহর থেকে শহরতলী তথা গ্ৰামে-গঞ্জে দেখতে বা শুনতে হয় নারীদের প্রতি এত অত্যাচার, স্বেচ্ছাচারিতা বা অপ্রয়োজনীয় শাসন? আজও কেন আমার আপনার বাড়ির নারীদের সন্ধ্যায় এক নির্দিষ্ট সময়ের পর একা থাকাটা এক চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়?
আজও কেন অনেক অনেক সভ্য পরিবারেও শুধুমাত্র নারীকেই অনেক কাজে নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয় এই বলে যে আমাদের সমাজে শুধু নারীই এই কাজ গুলোর জন্য বরাদ্দ? আমি এমন অনেক নারীকেই দেখেছি বা তাঁদের প্রশ্ন করেছি কেন শুধু তাঁরাই এই কাজের জন্য নির্দিষ্ট? তাঁরা সমস্ত বিতর্ক এড়িয়ে হাসতে হাসতে বলেছেন, তাঁরা ভালোই বাসেন এই কাজ গুলি করতে তাঁদের ভালো লাগে তাই করে। আর সেখানেই আমরা আজও লজ্জিত যে এত বিশেষ বিশেষ ও নির্দিষ্ট বিষয়ের একটি নির্দিষ্ট দিবসকে সোস্যাল মিডিয়াতে ঝড় তুলে দিয়েও আজও আমরা নারী ও নারী জাতির প্রতি প্রকৃত শ্রদ্ধা করার মানষিকতার উত্তরণ আনতে ব্যর্থ।

পরিশেষে শুধু এই টুকুই বলতে চাই, নির্দিষ্ট দিন নয়, বছরের প্রতিটি দিন হোক নারীদের জন্য, প্রতিটি মূহুর্ত আমরা যেন আমাদের শিক্ষা ও সভ্যতার আলোতে আমাদের সর্বস্তরের নারীদের উপযুক্ত সন্মান দিয়ে আমাদেরই সমাজ ও সভ্যতাকে আরও গর্বিত করে তুলতে পারি। আর এটাই হোক্ আজ সমস্ত সমাজের শপথ।